মেনু নির্বাচন করুন

হারবাং ইউনিয়নের ইতিহাস

জনশ্রুতি আছে, গৌতমবুদ্ধের নির্দেশে তাঁর অনুচর ভ্যেয়াইয়া নামক একজন বুড্ডিষ্ট বর্তমান হারবাং অঞ্চলে অবস্থান করেন এবং জংগল কেটে পরিকল্পিত বসতি গড়ে তুলে। তাই বসতি স্থপনকারী নেতার নামানুসারে এলাকটির প্রাচির নাম ছিল "ভ্যেয়াইয়া কাটা"। আবার অনেকের মতে, কুখ্যাত পতুর্গিজ জলদস্যুর সদার হার্মাদে প্রধান ঘাটি ছিল হারবাং এবং হার্মাদ এর নাম থেকে হারবাং নামের উৎপত্তি হয়েছে।

 

        কারো কারো মতে, হারবাং নাম ধারণে আগে এই এলাকাটিতে সমুদ্রে লোনা পানি টুকে এলকার ছড়াগুলোকে নুনা করে দিতে বলে এটি নুনাছড়ি নামে পরিচিত ছিল। খ্রিস্টপূর্ব ৭ম-৮ম শতাব্দীর হারবাং এলাকার প্রচুর রাখাইন জনগোষ্টির বসতি ছিল বলে এটি রাখাইন পাড়া নামেও পরিচিত ছিল আবার উত্তর পূর্ব দিকে হারবাং এলাকার দিকে তাকালে চাঁদের মত পাহাড়ের কোল ঘেষে থাকায় এক সময় পহর চাঁদা নামেও পরিচিত ছিল। মধ্যম পহর চাঁদা, দক্ষিন পহর চাঁদা প্রভূতি গ্রাম চাঁদের মতো পাহাড় বাক্যের স্মৃতি বহন করে চলছে।